আকাশ বার্তা
Next Prev

শনির সাড়েসাতি বা শনিদেবের দশা কি? কিভাবে বুঝবেন আপনার জীবনের শনির দশা লেগেছে? জানুন

এই শনির দশা থেকে কিভাবে মুক্তি পাবেন? জেনে নিন

আকাশ বার্তা অনলাইন ডেস্ক - শনি গ্রহ বা শনির সারেসাতি শুনলেই সকলেই আতঙ্কিত হন। তবে শাস্ত্র মতে শনির দুই গুণই আছে। শনি গ্রহ একদিকে যেরকম অশুভ গ্রহ ঠিক তেমনই এই গ্রহ কর্মের কারক ও বটে। এই গ্রহ মূলত ন্যায় বিচারক এবং পরম পবিত্র গ্রহ। শনির সারেসাতির প্রভাব যে সমস্ত জাতক জাতিকাদের ওপর পড়ে সেক্ষেত্রে সবাই আতঙ্কিত হলেও এই গ্রহ আসলে জাতক কে বাস্তবমুখী করে তোলে। চলুন জেনে নেওয়া যাক এই শনির সাড়েসাতি আসলে কি আর এর শুভ প্রভাব পাওয়ার উপায়ই বা কি।

আরও পড়ুন-   প্রতি বৃহস্পতিবার নিয়ম করে চাল রাখার হাড়িতে রেখে দিন এই জিনিস, বর্ষিত হবে মা লক্ষীর কৃপা
এক নজরে আজকের সমস্ত ব্রেকিং নিউজ

শনির সাড়েসাতি - শাস্ত্র মতে শনি হলো সবচেয়ে ধীর গ্রহ। অর্থাৎ এক রাশি থেকে আর এক রাশিতে প্রবেশ করতে শনি সময় নেই প্রায় ২ বছর ৬ মাস। অর্থাৎ এক একটি রাশিতে এই গ্রহের অবস্থান যেমন দীর্ঘ হয় ঠিক তেমনই ওই রাশির জাতক জাতিকাদের ওপর শনির প্রভাব ও দীর্ঘদিন থাকে। শাস্ত্র মতে শনির সাড়েসাতি বলতে বোঝায় চন্দ্র রাশির দ্বাদশে, চন্দ্র রাশিতে ও চন্দ্র রাশির দ্বিতীয়ে যখন শনি অবস্থান করে সেই সময় কালকে ই বোঝায়। 

শনির সাড়েসাতি থেকে মুক্তির উপায় - সকলেই মনে করে থাকেন শনির সাড়েসাতি মানেই খুবই কুপ্রভাব পরে। কিন্তু আদতে ব্যাপার টা সেই রকম নয়। শনির সাড়েসাতির প্রভাব থেকে মুক্তি পাওয়ায় সম্ভব। এক্ষেত্রে গ্রহের অবস্থান প্রধান ভূমিকা পালন করে থাকে। যখন দ্বাদশে শনি অবস্থান করার সাথে সাথে সাড়েসাতি শুরু হয় ওই একই সময়ে আবার যদি একই সাথে রাশির তৃতীয়ে বৃহস্পতিও অবস্থান করে সেক্ষেত্রে সাড়েসাতির কোন কুপ্রভাব জাতকের ওপর পড়েনা।

আরও পড়ুন-   রাশি পরিবর্তন করছে বৃহস্পতি, এই পাঁচ রাশির শুভ সময় আসছে, বাকি তিন রাশির হতে পারে অর্থাভাব

তবে শুধু বৃহস্পতি নয় বরং রাশির তৃতীয়ে রবি বাদে যেকোন গ্রহই যদি অবস্থান করে সেক্ষেত্রেও শনির সাড়েসাতি থেকে মুক্ত থাকবে জাতক জাতিকারা। আসলে রবি গ্রহ শনির সাড়েসাতির ওপর কোন প্রভাব ই বিস্তার করেনা ।সেই কারনেই রবি গ্রহ কু বা সু কোন প্রভাব বিস্তার করেনা জাতক জাতিকাদের ওপর। তবে এক্ষেত্রে বৃহস্পতির অবস্থান কাল থাকে সর্বোচ্চ এক বছর। অর্থাৎ ওই সময় পর্যন্তই জাতক জাতিকারা শনির সাড়েসাতির কু প্রভাব থেকে মুক্ত থাকবে। অপরদিকে রাহু বা কেতুর ক্ষেত্রে সেই সময়টি দাঁড়াবে ১ বছর ৬ মাস পর্যন্ত।

আপনি কী এই নিউজগুলি পড়েছেন? পড়ুন আজকের বাছাই করা ব্রেকিং নিউজের আপডেট

রাজনীতি

তথ্য ও প্রযুক্তি

বিনোদন