আকাশ বার্তা
Next Prev

দেবী সীতার এই অভিশাপের কারনে আজও কষ্ট পাচ্ছেন এই ৪ জন!

এমন কিছু ধরনের ঘটনা রয়েছে যেগুলো হয়তো রামায়ণেও উল্লেখ নেই কিন্তু পুরাণে সেই সমস্ত ঘটনাবলি আজও জীবন্ত । রাম এবং লক্ষণের কথা আমরা প্রত্যেকেই জানি । তার সাথে সাথে জানি মাতা সীতার কথা । কিন্তু পুরানে এমন একটা সময় আছে যেখানে মাতা সিতা এই চারজনের প্রতি রুষ্ট হয়ে এমন অভিশাপ দিয়েছিলেন যার ফল এখনো অব্দি তারা ভোগ করছে ।

আকাশবার্তা অনলাইন ডেস্ক:- পুরাণে এমন কিছু ঘটনার উল্লেখ রয়েছে যেগুলো হয়তো আমাদের অনেকের অজানা । কিন্তু সেই সমস্ত ঘটনা আমাদের বর্তমান যুগে প্রত্যেকের জানা উচিত ।  জীবনে চলার পথে সেই সমস্ত ঘটনাবলি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে সে ব্যাপারে নতুন করে আর বলার কোন অপেক্ষা রাখে না । আমাদের হিন্দু ধর্মের সব থেকে মূল্যবান ধর্মগ্রন্থ হচ্ছে শ্রীমদ্ভগবদগীতা । এখানে উল্লেখ রয়েছে শ্রীকৃষ্ণের মূল্যবান কিছু বাণী এবং উপদেশ । এছাড়াও এমন কিছু ধরনের ঘটনা রয়েছে যেগুলো হয়তো রামায়ণেও উল্লেখ নেই কিন্তু পুরাণে সেই সমস্ত ঘটনাবলি আজও জীবন্ত । রাম এবং লক্ষণের কথা আমরা প্রত্যেকেই জানি । তার সাথে সাথে জানি মাতা সীতার কথা । কিন্তু পুরানে এমন একটা সময় আছে যেখানে মাতা সিতা এই চারজনের প্রতি রুষ্ট হয়ে এমন অভিশাপ দিয়েছিলেন যার ফল এখনো অব্দি তারা ভোগ করছে ।

এক নজরে আজকের সমস্ত ব্রেকিং নিউজ

ঘটনার সূত্রপাত:- যখন রাজা দশরথ মারা যান তখন রাম লক্ষণ এবং সীতা তার পিণ্ড দেওয়ার জন্য বিহারে অবস্থিত বুদ্ধ গয়ার উদ্দেশ্যে রওনা দেয় । সেখানে উপস্থিত হবার পর রাম এবং লক্ষণ পিণ্ড দেওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় সামগ্রীর যোগাড় করতে ব্যস্ত হয়ে পড়ে । তখন মাতা সিতার তার সামনে এসে হাজির হয় রাজা দশরথ এবং তাকে তিনি বলেন যে তার ভীষণ খিদে পেয়েছে তাকে যেন অবিলম্বে এখনই পিণ্ডদান করা হ য় ।  কিন্তু মা সীতা এমনটা জানান যে লক্ষণ এবং রাম তার পিন্ডদানের সামগ্রীর যোগাড় করতে গেছে  । কিন্তু অপেক্ষা করতে নারাজ ছিলেন রাজা দশরথ । তিনি বলেন যে নদীর পাশে থাকা বালি দিয়েই যেন তাকে পিন্ডদান করে দেওয়া হয় এই মুহূর্তে  । সে কথা মত সমস্ত রকম বিধি-নিষেধ মেনে মাতা সিতা রাজা দশরথের পিণ্ড দান করেন  । সেই সময় সাক্ষী হিসেবে উপস্থিত ছিলেন একটি বট গাছ, একটি গরু, একটি ব্রাহ্মণ একটি তুলসী ও ফল্গু নদী। 

আরও পড়ুন - শ্রীকৃষ্ণ বলেছেন যার মধ্যে এই তিনটি গুণ আছে, সে মহা বিপদে পড়লেও ভগবান তাকে সব সময় রক্ষা করবেন!

কোন চারজনকে কি অভিশাপ দিলেন মাতা সিতা:-

পিন্ডদান যখন সম্পন্ন হয়ে যায় তখন পিন্ডদানের সামগ্রী নিয়ে এসে উপস্থিত হয় রাম এবং লক্ষণ। সেই সময় মাতা সিতা তাদেরকে বলেন যে তিনি রাজা দশরথের পিণ্ড দান করে দিয়েছেন । সময়ের মূল্য বুঝিয়ে তিনি এমনটা জানান যে রাজা দশরথের প্রচন্ড খিদে পেয়েছিল তাই তিনি এই পিন্ডদান সম্পন্ন করেছেন। সাক্ষী হিসেবে তাদেরকে নিয়ে যায় বট গাছ ,তুলসী গাছ ,গরু ,ব্রাহ্মণ এবং ফল্গু নদীর কাছে শুধুমাত্র এখানে বটগাছ ছাড়া বাকি সকলে সেই ঘটনাটি অস্বীকার করেন । এরপর রাজা দশরথের আত্মা রাম এবং লক্ষ্মণের  সামনে উপস্থিত হয় ও  এমনটা জানান যে মাতা সিতা সমস্ত বিধিনিষেধ মেনে তার পিন্ডদান সম্পন্ন করেছেন । যার ফলে সীতার বক্তব্য সত্য প্রমাণিত হয় । এরপর সীতা রেগে গিয়ে সেই চারজনকে অর্থাৎ গরু তুলসী গাছ, ফল্গু নদী এবং ব্রাহ্মণ কে অভিশাপ দেন যে অভিশাপ আজও  জীবন্ত ।

আরও পড়ুন - জীবনে সব জায়গায় সফলতা চাইলে মেনে চলুন শ্রীকৃষ্ণের এই তিনটি কথা!

কি অভিশাপ দিলেন:-

ফল্গু নদীকে মাতা সিতা অভিশাপ দিলেন যে গয়াতে পৃথিবীর নিচ দিয়ে বয়ে যাবে এই নদী  ।

গরুকে তিনি অভিশাপ দিলেন যে প্রতিটি বাড়িতে তার পুজো হলেও বাসি খাবার তাকে খেতে হবে  ।

তুলসী গাছ কে তিনি অভিশাপ দিলেন যে  গয়াতে কোন তুলসী গাছ জন্মাবে না  ।

এবং ব্রাহ্মণকে তিনি অভিশাপ দিলেন যে এই গয়াতে ব্রাহ্মণ কখনো সুখী হতে পারবেনা  ।

তার পাশাপাশি বটগাছকে তিনি আশীর্বাদ দিয়ে বললেন গয়াতে আসা মানুষেরা বটগাছ কেও একই সাথে পিন্ডদান করবেন ।

আপনি কী এই নিউজগুলি পড়েছেন? পড়ুন আজকের বাছাই করা ব্রেকিং নিউজের আপডেট

রাজনীতি

তথ্য ও প্রযুক্তি

বিনোদন