আকাশ বার্তা
Next Prev

স্বাস্থ্য সাথী কার্ড নিয়ে ফের বড় পদক্ষেপ রাজ্যের, এবার থেকে হাসপাতালই করে দেবে কার্ড

স্বাস্থ্য সাথী কার্ড না থাকলে করে দেবে হাসপাতালই, নয়া নির্দেশিকা স্বাস্থ্য দপ্তরের

আকাশবার্তা অনলাইন ডেস্ক : বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই দেখা গিয়েছে রোগী ভর্তি হওয়ার পর বেসরকারি হাসপাতাল এবং নার্সিংহোম ওই রোগীকে বেশ কয়েকটি নির্দিষ্ট প্যাকেজের আওতায় আনছে না। রাজ্য সরকারের স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পে ১৯০০ টির‌ও বেশি চিকিৎসা প্যাকেজ বর্তমান। অভিযোগ উঠেছে বহু বেসরকারি হাসপাতাল এবং নার্সিংহোম কয়েকদিন ধরে বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালিয়ে যাচ্ছে তারপর যখন রোগ নির্ণয় করা হচ্ছে ততদিনে অনেকটাই বাড়তি খরচের বোঝা রোগীদের ঘাড়ে চেপে যাচ্ছে। স্বাস্থ্য সাথী কার্ডের এই বাড়তি বোঝা বইতে গিয়ে স্বাস্থ্য দপ্তরের প্রতিদিন প্রায় ৮ কোটি টাকা খরচ হচ্ছে যা মাসে আড়াইশো কোটি টাকার কাছাকাছি। এবার এই স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পে কড়া নির্দেশিকা দিয়েছে রাজ্য সরকার।

আরও পড়ুন -  কবে থেকে বাংলায় পুরোদমে চলবে লোকাল ট্রেন? জানিয়ে দিলো পূর্ব রেল
এক নজরে আজকের সমস্ত ব্রেকিং নিউজ

কি নির্দেশিকা দিল রাজ্য সরকার? : রাজ্য সরকারের স্বাস্থ্য দপ্তরের নতুন নির্দেশিকায় নির্দেশ দেওয়া হয়েছে যে সরকারি হাসপাতালে ভর্তি হওয়া কোন রোগীর যদি স্বাস্থ্যসাথী কার্ড না থাকে তাহলে হাসপাতাল‌ই তা তৈরি করে দেবে। স্বাস্থ্য সাথী কার্ড নিয়ে গত সোমবার কড়া অবস্থান নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্প নিয়ে সরকারি এবং বেসরকারি হাসপাতালে জন্য দুটি নতুন অ্যাডভাইজারি জারি করেছে পশ্চিমবঙ্গ স্বাস্থ্য দপ্তর। সরকারি হাসপাতালের পক্ষ থেকে রোগীর স্বাস্থ্যসাথী কার্ড করিয়ে দেওয়ার নির্দেশ এর পাশাপাশি বেসরকারি হাসপাতালগুলোকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে যে রোগী প্রকল্পের কোন প্যাকেজের আওতায় চিকিৎসা পাবেন তা দ্রুত নির্ণয় করতে হবে এবং সেই সাথে রোগ নির্ণয়ের খরচ নির্দিষ্ট করে দিয়েছে রাজ্য সরকার।

আরও পড়ুন -  বড় খবর : স্কুল কলেজ খোলার দিন পরিবর্তন করল রাজ্য সরকার, সাথে জানিয়ে দেওয়া হল পঠন-পাঠন হবে কোন কোন ক্লাসের

এছাড়াও সরকারি হাসপাতালে ভর্তি হতে গেলে এবার থেকে স্বাস্থ্য সাথী কার্ড অথবা রাজ্য বা কেন্দ্রের হেলথ স্কিম অথবা ইএসআই প্রকল্পের মধ্যে যেকোনো একটি কার্ড অবশ্যই দেখাতে হবে। যদি স্বাস্থ্য সাথী কার্ড আনতে রোগী ভুলে যায় তাহলে তার আধার নম্বর দিয়ে স্বাস্থ্যসাথী ওয়েবসাইট থেকে প্রকল্পের ইউআরএন নম্বর সংগ্রহ করে নেওয়া হবে। যাদের সরকারি স্বাস্থ্য পরিষেবার কোনরকম কার্ড নেই তারা অন্য সরকারি পরিচয় পত্র জমা দিতে পারবেন। জানা গিয়েছে ছোট-বড় মিলিয়ে 2330 টি বেসরকারী হাসপাতাল এবং নার্সিংহোম স্বাস্থ্য সাথীর অধীনে রয়েছে। রাজ্য সরকার নির্দেশিকায় জানিয়েছে ওই সমস্ত হাসপাতালে অথবা নার্সিংহোমে জরুরিভিত্তিতে রোগীর পরীক্ষার জন্য 5000 টাকার বেশি খরচ করলে হবে না।

আপনি কী এই নিউজগুলি পড়েছেন? পড়ুন আজকের বাছাই করা ব্রেকিং নিউজের আপডেট

রাজনীতি

তথ্য ও প্রযুক্তি

বিনোদন