আকাশ বার্তা
Next Prev

হঠাৎ মাঝরাতে ক্যানসার-আক্রান্ত প্রেমিকার বায়নায় কলকাতার পুজো মণ্ডপে ঐন্দ্রিলা-সব্যসাচী, দেখুন ছবি

ক্যান্সার আক্রান্ত ঐন্দ্রিলার বায়নায় কলকাতার পুজো মণ্ডপে ঐন্দ্রিলাকে নিয়ে আসলেন প্রেমিক সব্যসাচী

আকাশ বার্তা অনলাইন ডেস্ক - সেলেব জুটি সব্যসাচী ও ঐন্দ্রিলা কে চেনেন না এমন মানুষ খুব কমই আছে। মূলত দীর্ঘ এক বছর ধরে মারন রোগের সাথে লড়াই করছেন ঐন্দ্রিলা।নিতে হয়েছে একের পর এক কেমো। সেই পরিস্থিতিতেও কার্যত প্রেমিকার হাত ছাড়েননি সব্যসাচী। রীতিমতো ওই পরিস্থিতিতে তার সর্বক্ষণের দেখভালের দায়িত্ব নিজের কাছেই তুলে নিয়েছিলেন তিনি। যেই ঘটনার প্রশংসা করেছিল সকলেই। তবে দুর্গা পুজো আর বাঙালীকে আলাদা করে এমন সাধ্য কার আছে। তেমনই মারন রোগ ও আলাদা করতে পারেনি দুর্গাপুজো আর ঐন্দ্রিলা কে। হঠাৎই মাঝরাতে প্রেমিক কে নিয়ে বেরিয়ে পড়েছিলেন ঠাকুর দেখতে। যেই ছবিই কার্যত ধরা পড়লো সোশ্যাল মিডিয়ায়।

আরও পড়ুন - PM আবাস যোজনায় ঘর নিতে চান? ফের নয়া বড় সুযোগ দিচ্ছে কেন্দ্র

এক নজরে আজকের সমস্ত ব্রেকিং নিউজ

ঐন্দ্রিলার বক্তব্য - অভিনেত্রী ঐন্দ্রিলা কে অনেকেই 'জিয়ন কাঠি' ধারাবাহিকের নায়িকা হিসেবে চেনেন। কিন্তু এহেন ঐন্দ্রিলা কার্যত নিজের জীবনের সাথে কঠিন লড়াই করে চলেছেন। তবে তার শরীর একটু সুস্থ থাকলেই তাকে তার পোষ্যদের সাথে খেলা করতেও দেখা গেছে। তবে তার শরীর সুস্থ থাকলে পুজোতেও যে ঘুরতে বেরবেন সেকথা আগেই জানিয়ে ছিলেন তিনি। এ ব্যাপারে তিনি বলেন, "আমি সব্যসাচীর কাছে আগে থেকেই বায়না করে রেখেছি যে শরীর যদি ঠিক থাকে তাহলে কাছেপিঠের ঠাকুর দেখাতে নিয়ে যেতে হবে আমায়।" সেই মতোই এদিন প্রতিমা দর্শনে বেরিয়েছিলেন এই যুগল।

আরও পড়ুন - এই কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ স্টেশনের জন্য রেলের টিকিটের দাম বাড়ালো ভারতীয় রেল, এক নজরে দেখুন তালিকা

সব্যসাচীর বক্তব্য - এদিন সব্যসাচী তার সোশ্যাল মিডিয়ায় তাদের প্রতিমা দর্শনের ই ছবি শেয়ার করে নিয়েছেন সকলের সাথে। পাশাপাশি তিনি জানিয়েছেন কলকাতার নামী পুজোর থেকে অনামী পুজোয় মন কেড়েছে ঐন্দ্রিলার। এই প্রসঙ্গে তিনি লিখেছেন, 'বায়না করেছিল যে পুজোর ছুটিতে আমি বাড়ি যাওয়ার আগে একটা ঠাকুর ওকে দেখাতেই হবে।' ঐন্দ্রিলার শরীর একটু ভালো থাকাতে, ভয়ে ভয়ে নিয়ে গিয়েছিলাম দক্ষিণ কলকাতার দুই নামকরা পূজা মণ্ডপে। অজস্র মানুষের মিছিল, ব্যারিকেড আর ‘নো পার্কিং’ এর স্রোতে ঘেমেনেয়ে হতাশ হয়ে বললো “ধুর, বাড়ি নিয়ে চলো, ঠাকুরকেই তো দেখতে পাচ্ছি না।” 

তবে তিনি জানিয়েছেন ফেরার সময় আড়ম্বরহীন একটি প্রতিমাই কার্যত মন ছুঁয়েছে ঐন্দ্রিলার। এ প্রসঙ্গে তিনি লেখেন, ফেরার পথে এক অচেনা পাড়ার মোড়ে এই ক্ষুদ্র নামহীন প্যান্ডেলটি দেখে একেবারে সামনে গিয়ে দাঁড়ালাম। মধ্যরাতে, মানুষ তো দূরের কথা, কাক পক্ষীও নেই। তবে এই বিগ্রহের কোনো থিম নেই, চাকচিক্য নেই, আড়ম্বর নেই। বড়ই সাদামাটা, বড়ই আটপৌরে, ঠিক যেন মায়ের মতন। আর এই প্রতিমার সামনেই দাঁড়িয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছবি দিয়েছেন সব্যসাচী। যে ছবিতে স্পষ্টতই ঐন্দ্রিলার খুশী ধরা পড়ছে। যেখানে দেখা যাচ্ছে প্রেমিকাকে জড়িয়ে ধরে খুশীর হাসি হাসছেন ঐন্দ্রিলা।

আপনি কী এই নিউজগুলি পড়েছেন? পড়ুন আজকের বাছাই করা ব্রেকিং নিউজের আপডেট

রাজনীতি

তথ্য ও প্রযুক্তি

বিনোদন