আকাশ বার্তা
Next Prev

বাড়ির গৃহের প্রবেশ দ্বারে রাখুন এই ১টি জিনিস, গৃহের সুখ শান্তি বজায় থাকবে আজীবন

গৃহে অশুভ শক্তি থেকে আর্থিক সচ্ছলতা বজায় থাকবে সবসময়, বাড়ির গৃহের প্রবেশ দ্বারে রাখুন এই ১টি জিনিস

আকাশ বার্তা অনলাইন ডেস্ক:- প্রতিটি মানুষই চায় তার বাড়ি ঝঞ্ঝাট মুক্ত থাকুক, পরিবারের সবাই একসাথে হাসি খুশী সুস্থ জীবন যাপন করুক সর্বোপরি সবসময়ের জন্য আর্থিক দিক থেকে সবল থাকুক। যেই কারনেই বাড়িতে নানান পূজা অর্চনাও করে থাকেন অনেকে। কিন্তু তার পরেও মূলত অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায় পরিবার থেকে অশান্তি যেন কিছুতেই দূর হচ্ছেনা কিংবা দীর্ঘদিন ধরে তীব্র অর্থসংকটে ভোগার মতো সমস্যাগুলি।

শাস্ত্র মতে এহেন সমস্যা গুলি দীর্ঘদিন ধরে চলতে থাকলে সেটা আপনার বস্তু দোষের জন্যও হয়ে থাকতে পারে।বাড়িতে নেগেটিভ এনার্জি প্রবেশ বা বাড়ির বা পরিবারের কারোর ওপর কারোর কুনজর পড়লেও এহেন সমস্যা দেখা দেয়। তবে বাস্তুবিদদের মতে এহেন নানা সমস্যা দূর করতে অর্থাৎ বস্তু দোষ দূর করতে বাড়ির সদর দরজা গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা নিয়ে থাকে। সেই কারনেই সদর দরজার সামনে এই জিনিসটি রাখার পরামর্শ দিচ্ছেন বাস্তুবিদরা। 

বাড়ির সদর দরজার সামনে রাখুন এই জিনিসটি - বস্তু বিদরা জানাচ্ছেন বাড়িথেকে নেগেটিভ শক্তি দূর করতে, গৃহে মা লক্ষীর প্রবেশ ঘটাতে এবং আর্থিক দিক থেকে স্বচ্ছল থাকতে সদর দরজা মূলত গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা নিয়ে থাকে। সেই কারনেই বলা হয়ে থাকে সদর দরজা যেন কখনোই ভাঙা না থাকে। ভেঙে গেলেও যেন তা সাথে সাথেই সরিয়ে নেওয়া হয়। তবে আজ এমন কিছু নিয়ম বলা হবে যেগুলি আপনি সদর দরজার সামনে করলে যেমন আপনার বস্তু দোষ দূর হবে তেমনই সুখ,সমৃদ্ধি তেও ভরে উঠবে আপনার পরিবার। 

আরও পড়ুন - গৃহের কোন ফুল রাখলে কাটে অশান্তি আসে সুখ সমৃদ্ধি ও অর্থ, জানুন কী বলছে বাস্তু

এক নজরে আজকের সমস্ত ব্রেকিং নিউজ

দীর্ঘদিন ধরে যদি আপনার পরিবারের কেউ কোন শারীরিক সমস্যায় ভুগতে থাকেন বা পরিবারের অকল্যাণ হয়ে থাকে সেক্ষেত্রে অনেকসময় কারোর বাড়ির প্রতি কুনজর এর জন্যও তা হয়ে থাকে। এক্ষেত্রে আপনি যদি বুঝতে পারেন কারোর কুনজর পড়েছে আপনার পরিবারের ওপর সেক্ষেত্রে আপনাকে কাটাতে হবে এই কুনজর। যার পদ্ধতিও খুবই সহজ। এক্ষেত্রে আপনার সদর দরজার সামনে খানটি ভালো করে ধুয়ে নিতে হবে।

এক্ষেত্রে আপনার সদর দরজার সামনের অংশটি যে জল দিয়ে ধুয়ে ফেলবেন সেই জলের ব্যবহার করতে হবে।লবণ এবং ফিটকিরি এই লবণ ও ফিটকিরি মেশানো জল দিয়ে যদি আপনি সপ্তাহে অন্ততপক্ষে দুদিন অর্থাৎ মঙ্গল ও শনিবার এই কাজ করতে পারেন তাহলে বজরং বলির কৃপায় আপনি এবং আপনার পরিবার সবসময়ের জন্য সুরক্ষিত থাকবেন।

প্রতিটি হিন্দু বাড়িতে তুলসী মন্দির তুলসী গাছ দেখতে পাওয়া যায়। এক্ষেত্রে আমরা সকলেই জানি তুলসী গাছের নানান গুনাগুন সম্পর্কে। তুলসী পাতা যেমন পুজোর কাজে ব্যবহার হয়ে থাকে ঠিক তেমনি শারীরিক নানা সমস্যার বিরুদ্ধেও দারুন কার্যকরী এই পাতা। তবে আপনি যদি আপনার বাড়ির সদর দরজার ঠিক সামনে নিয়ম মেনে এই তুলসী গাছ রাখেন তাহলে আপনার গৃহে স্বয়ং বাস করবে লক্ষী ও নারায়ন এবং গৃহ থেকে ত্যাগ করবে সমস্ত নেগেটিভ এনার্জি। এক্ষেত্রে সদর দরজার সামনে উত্তরপূর্ব কোন করে  তুলসী গাছ প্রতিষ্ঠা করতে হবে। মনে রাখতে হবে সদর দরজা খুলেই যেন এই তুলসী গাছ টি দেখতে পাওয়া যায়।

বাস্তুবিদদের মতে বলা হয়ে থাকে বাড়ির সদর দরজার রং যেন কখনোই কালো বা নীল না হয়। এর কারণ এই দুটি রং গৃহের পক্ষে কখনই শুভ নয়। মূলত বলা হয়ে থাকে বাড়ির সদর দরজায় যেহেতু মূল প্রবেশ পথ সেই কারণেই কালো এবং নীল রং যদি দরজায় থাকে তাহলে সেটিকে পরিবর্তন করে নেওয়া উচিত। বস্তু মতে যেকোন  কালো রং নেগেটিভ এনার্জিকে অতিমাত্রায় আকর্ষণ করে এবং নীল রং সেই নেগেটিভ এনার্জি কে গৃহে আরও বেশি পরিমাণে প্রবেশ করতে সাহায্য করে। সেই কারণেই সদর দরজায় কখনো কালো বা নীল রং করা উচিত নয়। 

আরও পড়ুন - রাতে ঘুমানোর আগে এই ছোট্ট তান্ত্রিক মা লক্ষী মন্ত্র একবার জপ করুন, ধীরে ধীরে আর্থিক সমস্যা কেটে আসবে সুসময়

গৃহ থেকে বস্তু দোষ কাটাতে এবং সুখ সমৃদ্ধি বৃদ্ধি করতে ফিটকিরির ভূমিকা অপরিসীম। বস্তু মতে আপনি যদি একটি হলুদ কাপড়ের মধ্যে এক টুকরো ফিটকিরি ও সিন্ধুক লবন দিয়ে একটি পুটলি বানিয়ে নিন। এর পর সদর দরজার সামনে ওই ফিটকিরি ও লবণ ভরা পুটলিটি যদি ঝুলিয়ে রাখেন সেক্ষেত্রে উপকার পাবেন অনেকটাই। এবং এটি গৃহের জন্য শুভ বলেও মনে করা হয়ে থাকে। 

গৃহের সামনে একটি সস্তিক চিহ্ন অঙ্কন করে রাখুন। চেষ্টা করুন লাল রং বা সিঁদুর দিয়ে এটি আকার। এক্ষেত্রে আপনার গৃহে পজিটিভ এনার্জি বৃদ্ধি পাওয়ার সাথে সাথেই দূর হবে সকল নেগেটিভ এনার্জি এবং গৃহে শান্তি বজায় থাকবে।

আপনি কী এই নিউজগুলি পড়েছেন? পড়ুন আজকের বাছাই করা ব্রেকিং নিউজের আপডেট

রাজনীতি

তথ্য ও প্রযুক্তি

বিনোদন