আকাশ বার্তা
Next Prev

সন্তানকে এই ৪ টি কথা বলা পিতা-মাতার কখনই উচিত নয়

এই ৪ টি কথা ভুলেও সন্তানকে বলা উচিত নয়, সতর্ক করেছিলেন শ্রী কৃষ্ণও!

আকাশবার্তা অনলাইন ডেস্ক:পৃথিবীতে যখন একজন শিশু জন্মগ্রহণ করে তখন সেই শিশুর মধ্যে কোনরকম দোষ, গুন ইত্যাদি থাকে না। সম্পূর্ণ সংস্কারমুক্ত হয়ে সে পৃথিবীতে জন্মগ্রহণ করে থাকে। জন্মের পর থেকে বড় হওয়া পর্যন্ত তার অভিভাবকেরা তাকে যে শিক্ষা দিয়ে থাকেন সেই শিক্ষাকেই পাথেয় করে একজন শিশুর জীবন তৈরি হয়।

তাই এই সময়ের মধ্যে শিশুকে বলা প্রতিটা কথা গুরুত্বপূর্ণ। কারণ এই প্রত্যেকটা কথা তার মনের উপর প্রভাব ফেলতে পারে এবং তার জীবনযাত্রা পরিবর্তন করে তুলতে পারে। শ্রীকৃষ্ণের বাণী অনুযায়ী সন্তানদের চারটি কথা কখনোই বলা উচিত নয়। এতে তার মনে মারাত্মক ধরনের প্রভাব পড়ে। আসুন জেনে নেওয়া যাক সেই কথা গুলি কি কি!

  • ভগবান শ্রীকৃষ্ণের বানী অনুযায়ী শিশুকে কোন কোন কথা বলা উচিত নয়?

অন্যের সঙ্গে তুলনা করা: একজন শিশুকে কখনোই অন্যের সঙ্গে তুলনা করা উচিত নয়। বাবা-মায়েরা অনেক সময়ে অন্যান্য ছেলে মেয়েদের গুণ বোঝানোর জন্য শিশুকে তাদের সাথে তুলনা করে থাকেন। এই ঘটনায় শিশুর মনে খারাপ প্রভাব পড়তে পারে।পাশাপাশি অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায় অন্যের গুন আপন করে নিতে গিয়ে তাদের দোষকেও শিশুরা নিজেদের মনে করে আপন করে নেয়। তাই এই কাজ করা থেকে অবশ্যই বিরত থাকুন। আপনার ব্যবহারের উপরই শিশুর ভবিষ্যৎ নির্ভর করবে।

এক নজরে আজকের সমস্ত ব্রেকিং নিউজ

কাঁদতে বারণ করা: শিশুর সমস্ত ধরনের কার্যকলাপ সমানভাবে গ্রহণ করা উচিত অভিভাবকদের। অনেক ক্ষেত্রে নিজেদের অনুভূতি প্রকাশ করতে তাদের বারণ করে থাকেন বাবা মায়েরা। যেমন শিশু কোন জিনিস হারিয়ে ফেললে সেটির জন্য কেঁদে থাকে।কিন্তু বাবা মায়েরা শিশুকে চুপ করানোর জন্য বারবার কাঁদতে বারণ করেন। এটি কখনই উচিত নয়।এতে তাদের মধ্যে অনুভূতি প্রকাশের ক্ষমতা চলে যেতে পারে। যার ফলস্বরুপ তাদের মানসিক বিকাশ ব্যাহত হতে পারে।

শিশুদের প্রশ্নের উত্তর এড়িয়ে চলা: অনেক সময় শিশুরা বাবা মায়েদের কাছে এমন কিছু প্রশ্ন করে থাকে যা তাদের মনে অস্বস্তি এনে দেয়। সেই ক্ষেত্রে বাবা-মায়েরা শিশুদেরকে প্রশ্নের উত্তর এড়িয়ে যান। এই কাজটি কখনোই করা উচিত নয়।এতে শিশুরা সেই প্রশ্নের উত্তর জানার জন্য কৌতুহলী হয়ে কোন ভুল কাজ করতে পারে।

তাই অবশ্যই শিশুরা কোন প্রশ্ন করলে তাদের যথাসম্ভব উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করুন।যদি উত্তর না দেওয়া যায় সেক্ষেত্রে তাদেরকে অন্য কোন ভাবে বোঝানোর চেষ্টা করুন।কিন্তু প্রশ্নের উত্তর এড়িয়ে গিয়ে তাদের মনকে কৌতুহলী হতে দেবেন না। এটা আপনার এবং আপনার সন্তান উভয়ের পক্ষে মঙ্গল।

আরও পড়ুন-"ভালো মানুষদের সঙ্গে সবসময় কেনো খারাপটাই হয়",- জানেন? বলেছিলেন শ্রীকৃষ্ণ!

 উৎসাহ নষ্ট করা: অভিভাবক বা বাবা-মায়েরা অনেক সময় শিশুদের কোন কাজের প্রতি রেগে গিয়ে বা তাদের কোনো কাজ পছন্দ না হলে শিশুদের গরু, গাধা প্রভৃতি কথায় সম্বোধন করে থাকেন।পাশাপাশি তাদের দ্বারা কোনো কাজ হবে না এমনটাও অনেকে বলে থাকেন। এতে শিশুর মনে খারাপ প্রভাব পড়ে। তাদের মানসিক বৃদ্ধি ব্যাহত হওয়ার পাশাপাশি অন্যান্য ধরনের চিন্তাভাবনা সৃষ্টি হয়।

তাই শিশুকে এই জাতীয় কথাবার্তা বলার আগে অবশ্যই ভেবে নেবেন।আপনার সঠিক শিক্ষাই পারে একজন শিশুকে সঠিক পথ অবলম্বনে সাহায্য করতে।শিশুদের মনে যাতে কোনো রকম খারাপ প্রভাব না পড়ে সেদিকে নজর রাখা অভিভাবকদের একটি গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব।

আরও পড়ুন-জীবনে সব জায়গায় সফলতা চাইলে মেনে চলুন শ্রীকৃষ্ণের এই তিনটি কথা!

আপনি কী এই নিউজগুলি পড়েছেন? পড়ুন আজকের বাছাই করা ব্রেকিং নিউজের আপডেট

রাজনীতি

তথ্য ও প্রযুক্তি

বিনোদন