আকাশ বার্তা
Next Prev

জীবনে শনির দশা লেগেছে? কিভাবে বুঝবেন? এই নিয়মটি মানলেই ধীরে ধীরে কেটে যায় শনির দশা

শাস্ত্র মতে বলা হয় শনি দেব এর কুদৃস্টি পড়লে সেই ব্যক্তির জীবনে নেমে আসে নানা সমস্যা। মূলত শনি দেবের কুদৃষ্টি পড়লেই শুরু হয় তার শনির দশা। তবে ভালো কর্মের জন্য শনি দেবের আশীর্বাদ ও পেয়ে থাকেন মানুষ। অনেক মানুষই তাদের শনির দশা কাটানো নিয়ে নানা চিন্তায় থাকেন।

আকাশ বার্তা অনলাইন ডেস্ক - শাস্ত্র মতে বলা হয় শনি দেব এর কুদৃস্টি পড়লে সেই ব্যক্তির জীবনে নেমে আসে নানা সমস্যা। মূলত শনি দেবের কুদৃষ্টি পড়লেই শুরু হয় তার শনির দশা। তবে ভালো কর্মের জন্য শনি দেবের আশীর্বাদ ও পেয়ে থাকেন মানুষ। অনেক মানুষই তাদের শনির দশা কাটানো নিয়ে নানা চিন্তায় থাকেন। তবে মূলত নিয়ম মেনে প্রদোষ ব্রত পালনের মাধ্যমেই আপনি স্বয়ং মহাদেব ও শনি দেব এর কৃপা দৃষ্টি লাভ করতে পারেন। চলুন জেনে নেওয়া যাক প্রদোষ ব্রত পালনের নিয়ম ও সময়।

এক নজরে আজকের সমস্ত ব্রেকিং নিউজ

শনি এমনই এক গ্রহদেব, যিনি কুপিত হলে অনন্ত দুর্দশা অনিবার্য। নল-দময়ন্তীর আখ্যান থেকে জানা যায়, কতটা বিপাকে মানুষ পড়তে পারে শনিদেব কুপিত হলে। কিন্তু ভারতীয় জ্যোতিষ একথাও জানায়, যে কোন দুর্দশাই শনির দশা নয়। শনির দশার কতগুলি বিশেষ লক্ষণ রয়েছে। এই লক্ষণগুলি থেকেই বোঝা যেতে পারে, শনি কুপতি হয়েছেন কি না। জেনে নেওয়া যাক সেই লক্ষণগুলি।


জুতা হারানো এবং বার বার জুতা ছিঁড়ে যাওয়া শনির দশার প্রাথমিক লক্ষণ। ঘন ঘন এমনটা ঘটলে সাবধান হওয়া উচিত।


বন্ধু বিচ্ছেদ, প্রেমে প্রতারণা, ঋণ বৃদ্ধি শনির দশার গুরুতর লক্ষণ।


পরীক্ষায় অকৃতকার্য হওয়া, পড়াশোনায় ছেদ শনির অসন্তুষ্টির কারণে ঘটতে পারে।


বৈবাহিক জীবনে অশান্তি শনির দশার অন্যতম লক্ষণ।


জুয়া, নেশা, প্রতারণার প্রতি আকর্ষণ বোধ করলে বুঝবেন আপনি শনির দশায়।


কর্মবিমুখতা এই দশার আর একটি লক্ষণ।


দেহে বিভিন্ন প্রকার ব্যথা-যন্ত্রণা অনুভব করাও এই দশার লক্ষণ।


সঞ্চয়ের অভাব অবশ্যম্ভাবী ভাবে শনির দশার লক্ষণ।


উদ্বেগ ও ক্লান্তিবোধ শনির কুপিত দশার কারণে অনিবার্য।

আরও পড়ুন- স্বয়ং মহাদেব এই গুপ্তমন্ত্র রচনা করেছিলেন, এই গুপ্তমন্ত্র রোজ দিনে ১ বার উচ্চারণ মাত্রই পাবেন ফল

প্রদোষ ব্রত -  প্রদোষ ব্রত মূলত শুক্ল পক্ষ এবং কৃষ্ণ পক্ষের ত্রয়োদশীর দিন পালন করা হয়। প্রতি মাসে শুক্ল ও কৃষ্ণ পক্ষের ত্রয়োদশী আসে দুবার করে। কাজেই প্রদোষ ব্রত প্রতি মাসে দুবার করেই আসে।

প্রদোষ ব্রতর নিয়ম -  প্রদোষ ব্রত মূলত শিব ঠাকুর ও দেবী পার্বতীর পুজো দিয়েই শনি দেবকে পূজা করতে হয়। এর জন্য আপনার করণীয় নিয়ম গুলি হলো -

উপবাস করে বেলপাতা,ধূপ, গঙ্গাজল,ধুতুরা ও প্রদীপ সহযোগে মনথেকে শিব ঠাকুরের আরাধনা করুন।

উপবাস অবস্থাতেই শিব পুজোর পর মন দিয়ে প্রদোষ ব্রতকথা শুনুন। 

ভক্তিভরে ব্রতকথা শোনা সম্পুর্ন হলে শিব ঠাকুরের আরতি করতে হবে।

এর পরেই শনি স্তোত্র পাঠ করার মধ্য দিয়ে সর্ষের তেল উৎসর্গ করতে হবে শনিদেবকে। এর ফলেই মিলবে শনির দশা থেকে মুক্তির উপায়।

আরও পড়ুন- শনি প্রবেশ করল মকরে, শনির সাড়েসাতির প্রভাবে দীর্ঘদিন কুপ্রভাব চলবে এই ২ রাশির উপর, কবে মিলবে মুক্তি?

শনি দেবের কৃপা দৃষ্টি লাভ - শাস্ত্র মতে বলা হয় প্রদোষ ব্রতর দিন নিন্মোক্ত নিয়ম গুলি পালন করলে শনি দেবের কুদৃষ্টির হাত থেকে মুক্তি পেতে পারে মানুষ। এর জন্য আপনাকে প্রতি মাসের প্রদোষ ব্রতর দুই দিন সর্ষের তেলের প্রদীপ জালাতে হবে অশ্বত্থ গাছের নীচে। মন থেকে শনিদেবকে উৎসর্গ করে জ্বলতে হবে এই প্রদীপ। এর পরই নিয়ম মেনে 'ওঁ শ‌ং শনৈশ্চরায় নমঃ নমঃ' মন্ত্রটি পাঠ করতে হবে ১০৮ বার।

আপনি কী এই নিউজগুলি পড়েছেন? পড়ুন আজকের বাছাই করা ব্রেকিং নিউজের আপডেট

রাজনীতি

তথ্য ও প্রযুক্তি

বিনোদন