আকাশ বার্তা
Next Prev

এক এক মহিলার অ্যাকাউন্টে একমাসে বারবার ঢুকছে লক্ষীর ভান্ডাড়ের টাকা, কেনো জানেন?

এক এক মহিলার অ্যাকাউন্টে একমাসে বারবার ঢুকছে লক্ষীর ভান্ডাড়ের টাকা!

আকাশবার্তা অনলাইন ডেস্ক : লক্ষীর ভান্ডার (LAKHSMI BHANDAR) প্রকল্পে একজন মহিলার অ্যাকাউন্টে এক মাসে বেশ কয়েকবার টাকা ঢুকে গিয়েছে বলে তথ্য পেয়েছে রাজ্য সরকার। অভিযোগ একাধিক মহিলার পক্ষ থেকে একটি অ্যাকাউন্ট (ACCOUNT) নম্বর দেওয়া হয়েছে যার ফলে প্রকল্পের ফর্ম বিশ্লেষণ করার সময় সেই অ্যাকাউন্ট নম্বর খুঁটিয়ে দেখা হয়নি । যার দরুন এক‌ই অ্যাকাউন্টে একাধিকবার টাকা ঢুকেছে। প্রশাসন মারফত জানা  গিয়েছে,  আর্থিক সাহায্য পাঠানোর চূড়ান্ত তালিকায় একই উপভোক্তার নাম একাধিকবার উল্লেখ করা হয়েছে। এবং তাদের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট নম্বর একই দেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন-  পরিকাঠামোর অভাব! পশ্চিমবঙ্গের এই জেলার জন্য দুঃসংবাদ, বন্ধ হয়ে গেলো দুয়ারে রেশন!
এক নজরে আজকের সমস্ত ব্রেকিং নিউজ

যার ফলে তথ্য মিলেছে যে ঐ সমস্ত উপভোক্তাদের এক মাসে বেশ কয়েকবার লক্ষীর ভান্ডার এর টাকা পাঠানো হয়েছে। যার দরুন কলকাতা  (KOLKATA) পুরসভা সহ সমস্ত জেলা প্রশাসনকে পশ্চিমবঙ্গ সরকার কড়া নির্দেশ দিয়েছে যে অতি দ্রুত এই প্রকল্পের সমস্ত বিষয় দুর্নীতি মুক্ত করতে হবে এবং যে সমস্ত টাকা দুর্নীতির মাধ্যমে দেওয়া হয়েছে সেই সমস্ত টাকা আবার কোষাগারে ফিরিয়ে আনতে হবে।

পুনরায় উপভোক্তাদের যাচাই করার প্রক্রিয়া চালাতে হবে। একমাত্র ন্যায্য উপভোক্তাকেই তথ্যভাণ্ডারে জায়গা দেওয়া হবে। দুর্নীতিগ্রস্ত কোথাও কোন বিষয় ঘটলে সাথে সাথে সেই নাম কেটে দেওয়া হবে। একমাত্র বৈধ উপভোক্তা কেই আর্থিক সুবিধা প্রাপকদের তালিকায় রাখতে চলেছে রাজ্য সরকার। 

আরও পড়ুন-   এবার কী পঞ্চম থেকে অষ্টম শ্রেণীর ক্লাস শুরু হতে চলেছে? যা জানালো রাজ্য সরকার, জানুন

লক্ষীর ভান্ডারকে দুর্নীতিমুক্ত করতে কি পদক্ষেপ নিচ্ছে প্রশাসন? : লক্ষীর ভান্ডার এর সুবিধা দেওয়া হচ্ছে প্রায় ১.৪৫ লক্ষ মহিলাকে। প্রশাসন দাবি করেছে এই সমস্ত প্রাপকদের যাদের গরমিল ধরা পড়েছে রাজ্যের নির্দেশে সশরীরে তাদের কাছে পৌঁছে গিয়ে নতুন করে প্রতিটি উপভোক্তার যাচাই প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে জেলা প্রশাসনিক আধিকারিকদের। কোন উপভোক্তা যদি বৈধ বলে প্রমাণিত হন এবং তার নিজস্ব অ্যাকাউন্ট না থাকে তাহলে তার নতুন ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট খুলে দেবে রাজ্য প্রশাসন । এই যাচাই প্রক্রিয়া এবং বৈধ উপভোক্তার নাম নথিভুক্ত হওয়ার কাজ সম্পন্ন হওয়া কালীন তার লক্ষীর ভান্ডার এর টাকা বন্ধ থাকবে।

আরও পড়ুন-   রাজ্যের এই ৫ জেলার করোনা পরিস্থিতি উদ্বেগজনক, এক লাফে এই কয়েকটি জেলায় অনেকটা বাড়লো করোনা আক্রান্তের সংখ্যা!

বাকি উপভোক্তাদের নির্দিষ্ট সময়ে টাকা দেওয়া হবে। যে সমস্ত অ্যাকাউন্টগুলিতে এতদিন অতিরিক্ত অর্থ পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে ট্রেজারি চালানের মাধ্যমে তা ফেরত এনে আবার মূল খাতে জমা করতে হবে। এই সমস্ত কাজ আগামী 7 ডিসেম্বরের (DECEMBER) মধ্যে সম্পন্ন করতে হবে। যে গরমিল গুলির কথা উপস্থাপিত হয়েছে ইতিমধ্যে সেই সমস্ত অ্যাকাউন্ট চিহ্নিতকরণ করা হয়েছে যার ফলে খুব সহজেই যাচাই প্রক্রিয়া চালানো যাবে। যখন এই প্রকল্পের নাম নথিভুক্ত করা হয় তখন বেশ কয়েকবার যাচাই প্রক্রিয়া চালানো হয়েছিল তার পরেও এইভাবে দুর্নীতির চিত্র কিভাবে উঠে এসেছে তা অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন।

আপনি কী এই নিউজগুলি পড়েছেন? পড়ুন আজকের বাছাই করা ব্রেকিং নিউজের আপডেট

রাজনীতি

তথ্য ও প্রযুক্তি

বিনোদন