আকাশ বার্তা
Next Prev

হিন্দু ধর্মে মৃত্যুর পর কেন দেহ দাহ করা হয়, জানুন গরুড় পুরানে দেওয়া বিশ্লেষণ!

জানেন হিন্দু ধর্মে মৃত্যুর পর কেন দেহ দাহ করা হয়? জানুন আসল কারণ

আকাশবার্তা অনলাইন ডেস্ক:- প্রত্যেকটি ধর্মেই মৃত্যুর পর সৎকারের আলাদা কিছু নিয়মাবলী রয়েছে।ইসলাম এবং খ্রিস্টধর্মে যেমন মৃত্যুর পর মৃতদেহ কবর দেওয়া হয় ঠিক তেমনভাবেই হিন্দু ধর্মের ক্ষেত্রে মৃত্যুর পর দেহ দাহ করা হয়। তবে এই দাহকার্য বিশেষ কিছু কারণ রয়েছে। সম্পূর্ণ শাস্ত্র মতে এই দাহকার্য সমাপন করা হয়। যাতে মৃত্যুর পর ব্যাক্তি পরমাত্মার উদ্দেশ্যে গমন করতে পারে। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা আলোচনা করবো কেন হিন্দু ধর্মের মৃত্যুর পর দেহ দাহ করা হয়। তাহলে আসুন আর দেরি না করে শুরু করা যাক।

এক নজরে আজকের সমস্ত ব্রেকিং নিউজ

হিন্দু ধর্মে মৃত্যুর পর দেহ দাহ করার কারণ:-

গরুড় পুরানের প্রকল্প অধ্যায় লেখা রয়েছে যখন মানুষ কর্ম করতে করতে মৃত্যুর নিকটে চলে আসে তখন তার শরীরে নানান ধরনের রোগ ব্যাধির উদ্ভব ঘটে। কিন্তু তখন তার শরীরে বাঁচার ইচ্ছে থাকে।মানুষের অন্তিম সময়ে শরীর থেকে এক ধরনের রশ্মি নির্গত হয়। এই রশ্মিতে নানান ধরনের দৃশ্য দেখা দেয়।যারা জীবনের শেষ সময় পর্যন্ত কোনো মিথ্যে কথা বলেন না বা ছলচাতুরি তে অংশগ্রহণ করেন না তাদের ক্ষেত্রে এই রশ্মিতে বিভিন্ন সুখকর দৃশ্য দেখা দেয়। এবং তাদের মৃত্যু যন্ত্রণা দায়ক হয় না। কিন্তু যাদের জীবন মিথ্যার ওপর ভিত্তি করে নির্মিত হয়ে থাকে বা যারা পরকীয়া সম্পর্কে লিপ্ত থাকেন তাদের ক্ষেত্রে মৃত্যু অত্যন্ত ভয়াবহ হয়ে থাকে। তারা অন্তিম মুহূর্তে বিভিন্ন ভয়ানক দৃশ্য দেখে থাকেন।

আরও পড়ুন - রাস্তায় মৃতদেহ নিয়ে যেতে দেখলে কি হয়, কারোর অন্তিম সংস্কারে শ্মশানে গেলে কি হয়, জানুন কি বলছে গরুড় পুরান!

মানুষের জীবন কালের কর্মের উপর ভিত্তি করেই তার পরবর্তী জীবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপিত হয়। মানুষ জীবনকালে যা কর্ম করে থাকে পরবর্তী প্রজন্মে সেগুলির ফল পাওয়া যায়। অর্থাৎ কর্মের উপর ভিত্তি করেই মানুষ পরবর্তী জন্মলাভ করে।আপনারা হয়তো অনেকেই দেখে থাকবেন মৃতদেহ সৎকারের উদ্দেশ্যে নিয়ে যাওয়ার পর মৃতদেহ রাখা হয়েছিল এমন স্থানে গোবর লেপে দেওয়া হয়।এর কারণ যাতে মৃতের সাথে সমস্ত রোগব্যাধি এবং অন্যান্য দুঃখ দূর হয়ে যায় সেই কারণে জায়গাটিকে পবিত্র করা হয়।

আরও পড়ুন - অন্তিম সংস্কারের পর কেনো ভুলেও পেছনে ফিরে তাকাতে নেই, জানেন!

হিন্দু ধর্মের অন্তিম সংস্কার দেখা যায় সমস্ত নিয়মবিধি মেনে শব যাত্রার মাধ্যমে মৃতদেহ শ্মশানে নিয়ে যাওয়া হয়। এরপর চিতা সাজিয়ে আত্মীয়স্বজন এবং পুত্র-কন্যাদের সহায়তায় সেই চিতা দাহ করা হয়। এই চিতায় দাহ করার প্রধান কারন হচ্ছে যাতে ব্যক্তির মৃত্যুর পর তার পূর্ব জীবনের সমস্ত ঋণ এবং সম্পর্ক থেকে মুক্তি পেয়ে যান। যদি দাহ না করা হয় সে ক্ষেত্রে তার পূর্বজীবনের বাধা পরবর্তী জীবনেও থেকে যাবে। মৃতদেহ সৎকার করার পর শ্মশান যাত্রীদের কখনোই পিছনে ফিরে তাকাতে নেই। সোজা বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা হতে হয়। পেছন ফিরে তাকালে প্রেত বাধা সৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।এই বাধা সৃষ্টি হলে মৃত ব্যক্তির আত্মা ইহজগতে বসবাস করার সময় পর্যন্ত ওই ব্যক্তির সাথে থেকে যায়।

আপনি কী এই নিউজগুলি পড়েছেন? পড়ুন আজকের বাছাই করা ব্রেকিং নিউজের আপডেট

রাজনীতি

তথ্য ও প্রযুক্তি

বিনোদন